1. news@banglaroitizzo.com : BanglarOitizzo :
  2. banglaroitizzo.news@gmail.com : newseditor :
বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ০৭:০৪ পূর্বাহ্ন

চট্টগ্রাম নগরীর ১০ এলাকায় রেড জোন

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: রবিবার, ১৪ জুন, ২০২০
  • ৭ বার পড়া হয়েছে
রেড জোন

করোনাভাইরাস মোকাবেলায় প্রথমবারের মত চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ১০ নম্বর উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ডকে লকডাউন করা হচ্ছে। এছাড়া আরও ১০ ওয়ার্ডকে রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। আগামী ১৬ জুন রাত ১২ টা থেকে পরীক্ষামূলকভাবে উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ডে লকডাউন কার্যকর করা হবে। পর্যায়ক্রমে অন্য ১০ ওয়ার্ডও করা হবে। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন এলাকায় মোট ১১ টি ওয়ার্ডকে রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সিএমপির উপ কমিশনার (বিশেষ শাখা) আব্দুল ওয়ারিশ বলেন, ‘করোনা প্রতিরোধে গঠিত কেন্দ্রীয় টেকনিক্যাল কমিটির সুপারিশে আগামী ১৬ জুন রাত ১২ টা থেকে পরীক্ষামূলকভাবে উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ডে লকডাউন কার্যকর করা হবে। পর্যায়ক্রমে অন্য ১০ ওয়ার্ডও করা হবে। পরীক্ষামূলকভাবে লকডাউন চলা ওয়ার্ডটিকে ২১ দিন দেখার পর অন্য ওয়ার্ড গুলো করা হবে।করোনা প্রতিরোধে গঠিত কেন্দ্রীয় টেকনিক্যাল কমিটির শনিবারের সভায় চট্টগ্রাম সিটির ১১টি ওয়ার্ডকে চিহ্নিত করা হয়। চট্টগ্রাম সিটির ১০ এলাকাকে রেড জোনের মধ্যে রাখা হয়েছে।

 

সেগুলো হলো, চট্টগ্রাম বন্দরে ৩৭ ও ৩৮ নম্বর ওয়ার্ড, পতেঙ্গার ৩৯ নম্বর ওয়ার্ড, পাহাড়তলির ১০ নম্বর ওয়ার্ড, কোতোয়ালির ১৬, ২০, ২১ ও ২২ নম্বর ওয়ার্ড, খুলশীর ১৪ নম্বর ওয়ার্ড, হালিশহর এলাকার ২৬ নম্বর ওয়ার্ড।চট্টগ্রামের যেসব এলাকায় প্রতি এক লাখ জনসংখ্যায় ১৪ দিনে ৬০ জন আক্রান্ত হয়েছে সেসব এলাকাকে রেড জোন চিহ্নিত করা হয়েছে।ওইসভার সিদ্ধান্ত মতে, জেলার জেলা প্রশাসক, সিভিল সার্জন এবং পুলিশ কমিশনার/ সুপার মিলে এসব জোনের মধ্যে সুনির্দিষ্টভাবে লাল এলাকা চিহ্নিত করবেন। ১০ নম্বর উত্তর কাট্টলী বাংলাদেশের চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন একটি ওয়ার্ড। উত্তর কাট্টলী, বিশ্ব কলোনি, ফিরোজশাহ, সাগরিকা এবং পাহাড়তলী এলাকার কিছু অংশ নিয়ে গঠিত এই ওয়ার্ডটিতে চট্টগ্রাম সিটি গেট, কৈবল্যধাম মন্দির এবং জহুর আহমেদ চৌধুরী ক্রিকেট স্টেডিয়ামের মতো গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার পাশাপাশি প্রায় ১৫০ টি কলকারখানা রয়েছে। ওয়ার্ডটিতে কৈবল্যধাম রেলস্টেশন ও ক্রিকেট স্টেডিয়াম রেলওয়ে স্টেশন নামে দুটি রেলস্টেশন আছে।নিয়মানুযায়ী, রেড জোনে পালিত নিশ্চিত করা হতে পারে কঠোর লকডাউন, ইয়েলো জোনে জনসমাগম হবে নিয়ন্ত্রিত, ব্লু জোনে করা হবে সামাজিক দুরত্ব ও স্বাস্থ্য বিধির প্রয়োগ এবং গ্রিন জোনে বহিরাগতদের প্রবেশাধিকার করা হবে সংরক্ষিত।সামাজিক সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে রাখতে না পারার কারণে স্বাস্থ্য দপ্তরের সূত্র অনুযায়ী নগরীর থাকবে না কোনো গ্রিন ও ব্লু জোন।

এছাড়া ইয়ালো জোনও ক্রমাগত এগিয়ে যাচ্ছে রেড জোনের বৈশিষ্ট্যে।যেসব এলাকাকে রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত করা হবে সেগুলোতে কড়াভাবে লকডাউন কার্যকর করার সুপারিশ করা হয়েছে কমিটির পক্ষ থেকে। রেড জোনে যেসব কোভিড-১৯ রোগী থাকবেন এবং যারা কোয়ারেন্টিনে থাকবেন, তাদের নিজেদের বাসা থেক বের হতে দেয়া হবে না। আক্রান্ত রোগী ও কোয়ারেন্টিনে থাকা ব্যক্তিদের খাবার ও জরুরি ওষুধ তাদের বাসায় পৌঁছে দেয়ার ব্যবস্থা করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

নিউজ ক্যাটাগরি