1. news@banglaroitizzo.com : BanglarOitizzo :
  2. banglaroitizzo.news@gmail.com : newseditor :
সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ০১:০২ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
টানা ১৫ দিন ধরে চলছে ইবতেদায়ি শিক্ষকদের আন্দোলন রাঙ্গাবালীর চরমোন্তাজে ‘উন্নয়ন সমাজকল্যান সংস্থা’র প্রতারণা, সঞ্চয় নিয়ে নয়ছয়, কার্যালয়ে ঝুলছে তালা! কীর্তনখোলার তলদেশে পলিব্যাগ আর পলিথিনের কারনে উন্নয়ন কাজে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। পলাশবাড়ী প্রেসক্লাবের ত্রি বার্ষিক সাধারণ নির্বাচনে পাতা সভাপতি রতন সাধারণ সম্পাদক ঢাকা থেকে বরিশাল-পটুয়াখালী রেললাইন নিয়ে যাব: প্রধানমন্ত্রী বরিশালে নির্মাণ শ্রমিকের লাশ উদ্ধার ঝালকাঠিতে সড়ক দূর্ঘটনায় আহত স্বাস্থ্য সহকারি আফজালের খবর নিচ্ছেনা কেউ মেয়র প্রার্থী সুব্রত লাল কুন্ডুর শোডাউন জনস্রোতে পরিণত তামিম ঝড়ে প্রথম জয় পেলো বরিশাল। ‘ভ্যাকসিনে গুণী সংস্কৃতিসেবীদের অগ্রাধিকার দেয়া হবে’

সামাজিক গুনাবলী সম্পূর্ণ লোক ওসি আলমগীর।

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: বুধবার, ১ জুলাই, ২০২০
  • ৬ বার পড়া হয়েছে
পুলিশ ওসি শেরপুর

একাধারে একজন মানবিক এবং সামাজিক গুণাবলী ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সমৃদ্ধ পুলিশ কর্মকর্তা শেরপুর জেলার নকলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলমগীর হোসেন শাহ। যিনি সকল প্রয়োজনে পাশে দাড়ান পুলিশের, দাড়িয়ে যান সমাজ সংস্কারে, পাশে দাড়ান অসহায়দের। কোথায় নেই তার পদচারণা? এক কথায় নকলাবাসী এমন একজন গুণাবলী সমৃদ্ধ পুলিশ কর্মকর্তা পেয়ে যেমনি আনন্দিত তেমনি আশান্বিত।

১লা জুলাই বুধবার সাড়ে বারটা। হঠাৎ পুলিশের গাড়ির সাইরেন নকলার জালালপুর এলকায়। কোনকিছু বুঝে ওঠার আগেই সোজা চলে গেলেন অসুস্থ্য আবু মিয়ার বাড়িতে। গিয়ে দেখা গেল ওসি আলমগীর হোসেন শাহ। নির্দিষ্ট দূরত্বে দাড়িয়ে রয়েছেন পুলিশের অন্যান্য সদস্যরা। বেশকিছু সময় সামনা-সামনি দূরত্ব বজায় রেখে দাড়িয়ে থেকে আবু মিয়ার চিকিৎসা ও শারিরিক অবস্থার খোঁজ নিলেন তিনি এবং সহযোগিতা ও সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিলেন তিনি। আবু মিয়াকে কাঁচা বাজার, মুরগী, মাছ, শাকসবজি ও নগত অর্থ সরবরাহ করলেন। “মানবিক পুলিশের চোখে জনতার আকাঙ্খা লেখা থাকে” এই শ্লোগানে নকলার আইনশৃঙ্খলায় পরিবর্তন ও বিভিন্ন ক্ষেত্রে সফলতা এসেছে যার কর্ম দক্ষতায় তিনি চাক্কস প্রমান পুলিশ কর্মকর্তা আলমগীর। জানাযায়, অসুস্থ্য আবু মিয়ার বাড়ি নকলা পৌরসভার মাওরা এলাকায়। সে তার সহায় সম্বল সব বিক্রি করে তার লিভারের বাইপাস অপারেশন করেন। বর্তমানে তার কিছুই নেই। তিনি তার মেয়ের জামাই বাড়ি জালালপুর এলাকায় থাকেন। তার চিকিৎসার খরচও অনেক। তিনি ঠিকমতন চিকিৎসা না করতে পেরে ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে চলে যাচ্ছে। তিনি সমাজের ধনাট্য ব্যক্তিদের কাছে তার চিকিৎসা সহায়তার জন্য আবেদন জানান।

নকলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আলমগীর হোসেন শাহ জানান, আমি আবু মিয়ার বিষয়টি ফেসবুকে দেখি। শেরপুর জেলা পুলিশ সুপার স্যার খুবই মানবিক। তার পরামর্শক্রমে আজ আমরা আবু মিয়াকে দেখতে যাই এবং তার শারিরীক খোজ খবর নেই। তাকে নকলা থানার পক্ষ থেকে সামান্য সহায়তা করি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

নিউজ ক্যাটাগরি