1. news@banglaroitizzo.com : BanglarOitizzo :
  2. banglaroitizzo.news@gmail.com : newseditor :
মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৬:৪০ অপরাহ্ন

৬৫ দিন অপেক্ষার পরে মনের আনন্দে গভীর সমুদ্রে নামছে জেলেরা।

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ২৪ জুলাই, ২০২০
  • ১১ বার পড়া হয়েছে
মাছ ধরার নৌকা

দীর্ঘদিন অপেক্ষা করে বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকে ৬৫ দিনের অবরোধ কাটিয়ে গভীর সাগরে যাত্রা শুরু করেছে রুপালী ইলিশ ধরার জন্য পটুয়াখালী জেলার উপকূলীয় এলাকার কয়েক হাজার জেলে।

দীর্ঘদিন অপেক্ষায় ছিল অবরোধ কবে শেষ হবে দেখা গেছে বৃহস্পতিবার মধ্য রাতের পর জেলেদের আনন্দ উৎসব সবার মুখে হাসি জালে মিলবে ঝাঁকে ঝাঁকে রুপালী ইলিশ, মৎস্য ব্যবসায়ীরা ফিরে পাবে বাণিজ্যিক প্রাণচাঞ্চল্য এমন প্রত্যাশা জেলেসহ ব্যবসায়ীদের।তবে জেলেদের দাবি আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশের সাথে সমন্বয় করে অবরোধকালীন সময়সীমা নির্ধারণ করা।

মাত্র কয়েকদিন বাকি ঈদুল আযহাকে সামনে রেখে পরিবারের মুখে হাসি ফোটাতে গভীর সাগরে ইলিশ শিকারের উদ্দেশ্যে যাত্রা করেছেন পটুয়াখালীর উপকূলীয় উপজেলার কলাপাড়ার মহিপুর, আলিপুর, কুয়াকাটা, ধানখালী,রাঙ্গাবালী,বড়বাইশদিয়া, মৌডুবী, চালিতাবুনিয়া, চরমোন্তাজ এসব উপকূলীয় এলাকার প্রায় অর্ধলক্ষাধিক জেলে।বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকে মনের আনন্দে জেলেরা মাছ ধরা ট্রলার নিয়ে দলে দলে গভীর সাগরের দিকে নামতে শুরু করেছে । অবরোধকালীন সময়ে দীর্ঘ প্রস্তুতি নিয়ে জেলেদের সমুদ্রে যাত্রার ফলে দক্ষিণের বৃহৎ মৎস্য বন্দর আলীপুর-মহিপুর, ধুলাসার বাবলাতলা এবং রাঙ্গাবালীর আড়তসহ বরফকল এবং সংশ্লিষ্ট ব্যবসা-প্রতিষ্ঠানগুলোতে ফিরতে শুরু করেছে প্রাণচাঞ্চল্য।

জেলে হাফিজুর রহমান বলেন, সরকার মৌসুমের শুরুতেই যে ৬৫ দিনের অবরোধ দিয়েছে আমরা অবরোধে মাছ শিকারের জন্য সাগরে নামি নাই তবে সরকার যদি আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশের সাথে সমন্বয় করে একই সময়ে অবরোধ দিতেন তাহলে আমাদের জন্য ভাল হত।ক্ষোভের সাথে তিনি আরো বলেন,আমাদের দেশে যখন অবরোধ দেয়া হয় তখন পার্শ্ববর্তী দেশের জেলেরা আমাদের বাংলাদেশে ঢুকে তারা মাছ ধরে নিয়ে যায়।

রাঙ্গাবালীর মৌডুবীর জাহাজমারা স্লুইজগেট সমিতির সভাপতি নজরুল হাওলাদার বলেন, আমাদের জেলে পল্লীতে ৬৫ দিনের অবরোধে জেলেদের যে জমানো টাকা ছিল সেগুলো বসে বসে খেতে হয়েছে। কারণ জেলেরা সাগরের মাছ ধরা ছাড়া অন্য কোন কাজ করতে পারে না ।

মৎস্য ব্যবসায়ী শাহজাহান ভূইয়া বলেন, সরকার ২ মাস ৫ দিন অবরোধ দিয়েছে এতে আমাদের চলতে কিছুটা কষ্ট হয়েছে তবুও আমি মনে করি আমাদের জন্য অনেক ভালো হয়েছে। এ কারণে সাগরের যত গর্ভবতী মা মাছ গুলি আছে তারা এই দুই মাসে ডিমগুলি নদীতে ছাড়লে আমরা এখন মাছ পাইতাম তার চাইতে পরবর্তীতে অনেক বেশি মাছ পাব জেলেরা পাবে অনেক বেশি মাছ আমরাও বিক্রি করে হব লাভবান তবে আমি মনে করি যে সরকার যে অবরোধ দিয়েছে তা আমাদের জেলে ও ব্যবসায়ীদের মধ্যে অনেক ভালো হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

নিউজ ক্যাটাগরি